বৈশাখী

বৈশাখী *মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ

তুই কি একটা লাল ওড়না, একগাছি লাল চুড়ি,একটা পুতুল লাল ফিতে,এক শিশি আলতা,আর এক কৌটো মিশি চেয়েছিলি বৈশাখি?
না আমি তোকে আপাতত পারছিনা দিতে
জানিসতো,
এবার হবেনা মেলা
জমবেনা বটতলা,হাটখোলা,কিংবা
শোয়াই নদীর পাড়,
নদীই তে মরেছে
অসভ্যদের ভাইরাসে

আর শকুনগুলোর দাপটে
আকাশটার রুদ্রমেঘের আস্তর পড়ছে
খসে

রাতের আঁধারে লুট হলো
বিবেকের ঘরগেরস্থালি
তুই চুড়ি ভাঙ্গলি
আলতার শিশি থেকে
রক্ত গড়ালো কবরে

বৈশাখী,তুই কি এখন দূর শহরে
কাঁচে ঢাকা প্লাস্টিক ফুলের নাম?
অথবা
পান্তা ইলিশের নামধারী সুখাভিনয়ের
ক্ষমাহীন চর্চা?
কিংবা
ইলিশ, ঘুড়ি, পাখা খচিত
জামদানীর নাম?
আর
মরা পার্কের কংক্রিটে বসে
স্বার্থপর সেলফিগুলো?

(এদিকটায় মিনিট্রাকে ভুভুজেলার বিকট
পলিউশনে আক্রান্ত কিশোরগুলো
রং মেখে সং সেজে তোকে চেনাতে
অপচেষ্টা করে চলেছে)

সকালটার গালে আস্ত একটা চড় বসিয়ে
বৈশাখী এবার ছাাইভষ্ম সমাজ থেকে
মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে
কতিপয় হিংস্র মুনাফাখোর যখন
মঞ্চের চারপাশের আলো নিভিয়ে দিচ্ছিল
পোড়াচ্ছিলো ফ্যাক্টরী
টায়ারের তলায় পিষে যাচ্ছিলো
শ্রমিক কৃষক ছাত্রের ম্যান্ডেট

তখনো জেগে থাকা
দোয়েলের শীশ্ শুনে শুনে
ঘুম টুটে যায়
সবুজ পাটশাক, চেক গামছাবাধা
খৈ বাতাসা নিয়ে ঘরে ফিরি
তোর আলতা রাঙ্গা ঠোঁটে
এক চিলতে সূর্য সকাল দেখবো বলে

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top