কালবৈশাখী (অণুগল্প)

অণুগল্প — কালবৈশাখী

গল্পকার — অভিষেক সাহা

কথা নেই, বার্তা নেই চলে এল। এখন তো সবাই রাস্তার এ পাশে দাঁড়িয়ে ফোন করে নেয় ওপাশে যার আসার কথা সে এসেছে কিনা, তবে রাস্তা পার হয়। আর একে দেখো সকালে তো নয়ই, দুপুর যখন একটু একটু করে বিকেলের সাথে মিশছে, তখনও কিছু বলল না। এদিকে সন্ধ্যা নামতেই এসে হাজির।
কালবৈশাখী। নামে বৈশাখ থাকলেও, মধ্য চৈত্রে আসতে একটুও দ্বিধা করে না । সে আসবি আয় , একটু জানিয়ে তো আসবি! হাওয়া অফিস রোজই একবার করে জানান দেয় । কিন্তু সে কথা আর কে শোনে!
হঠাৎ কালবৈশাখী ঝড় শুরু হওয়ায় কোনোমতে একটা বন্ধ দোকানের সামনে একটু ছাউনির নিচে আশ্রয় নিয়ে ভাবতে থাকে বিদিশা। শুধু ও একা নয়, আরও দু’জন লোকও ওর পাশে এসে দাঁড়াল। শুধু তো ঝড় নয়, সঙ্গে বৃষ্টি। মুষলধারায় না হলেও জোর আছে। মধ্য চৈত্রে প্রায় চল্লিশ ছুঁই ছুঁই গরমে এই ঝড় বৃষ্টি অল্প হলেও আরাম দিল , সাথে এই বিড়ম্বনা ফ্রি।
” যাই বলুন, যা গরম চলছিল, আজ অনেক দিন পর রাতে শান্তিতে ঘুমানো যাবে।” দোকানের ছাউনির নিচে দাঁড়িয়ে থাকা এক ভদ্রলোক বিদিশাকে উদ্দেশ্য করে বললেন।
” সে তো ঠিক কথা।” সংক্ষেপে বলল বিদিশা।
” তবে এই ঝড়ের সাথে শিলা বৃষ্টি হলে আমের ফলনে ক্ষতি হবে।” অন্য ভদ্রলোক এবার বললেন।
” শুধু আমের কেনও , অনেক কিছুরই ক্ষতি হবে !” বিদিশা উত্তর দিল ।
” ঠিক বলেছেন দিদি, আমাদের তো খুব ক্ষতি হল।” ওরা তিনজন খেয়ালই করেনি, ওদের পাশে এক বয়স্ক ভদ্রলোক , চাদর গায়ে জড়িয়ে ছাউনির নিচেই বসে আছেন। শরীরে, পোশাকে দারিদ্র্যের ছাপ স্পষ্ট, সেই বলে উঠলেন।
সেই লোকটা ওদের তিনজনের দিকে তাকিয়ে বললেন , ” ওই বাসস্টপের ছাউনির নিচে বৌ- বাচ্চা নিয়ে থাকি। আজ সব ভিজে গেল। সারা রাত বসেই কাটাতে হবে!”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top